শুক্রবার - মার্চ ২২ - ২০১৯ ||
Home / অর্থনীতি / হঠাৎ শিলা বৃষ্টিতে চরফ্যাশনে তরমুজের ব্যাপক ক্ষয় ক্ষতি

হঠাৎ শিলা বৃষ্টিতে চরফ্যাশনে তরমুজের ব্যাপক ক্ষয় ক্ষতি

স্বাধীনকথা ডট কম
রিয়াজ মোর্শেদ, চরফ্যাশন, ভোলা।
ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার বিভিন্ন স্থানে হঠাৎ বৃষ্টির কারণে তরমুজের ব্যাপক ক্ষতির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। গত কয়েকদিনের বৃষ্টিতে তরমুজ ক্ষেতে পানি জমে গাছ মরে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। তরমুজ চাষিরা আগাছা পরিষ্কার করে গাছ বাঁচানোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। মঙ্গলবার সকাল থেকে প্রচন্ড বর্ষায় জমিতে পানি জমে গেছে। বুধবার দুপুরে সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, চরফ্যাশন উপজেলার বিছিন্ন দ্বীপ মজিবনগর, চরকুকরি মুকরি, ঢালচর, চরকলমী,আমিনাবাদ, চরমাদ্রাজ, আসলামপুর, নুরাবাদ, আহম্মদপুর, ফরিদাবাদ, আবুবক্বরাপুর, নীলকমল, হাজারীগঞ্জ, এওয়াজপুরসহ কয়েকটি এলাকায় বিভিন্ন স্থানের চাষিরা তরমুজের জমি রক্ষার জন্য পানি সেচ দিয়ে শুকানোর চেষ্টা করছে। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, এই উপজেলার প্রায় ২৫ ভাগ মানুষই মৌসুমে তরমুজ চাষের উপর নির্ভরশীল। অনেকে সুদে টাকা নিয়ে ব্যয় করছেন তরমুজ চাষে। জানতে চাইলে আহম্মদপুরের তরমুজ চাষি আলা উদ্দিন জানান, এ বছর তরমুজ চাষে তার প্রায় ছয় লক্ষ টাকা ব্যয় হয়েছে। বৃষ্টির পানি গাছের গোড়ায় জমা হয়ে গাছ মরে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে । বৃষ্টির পরে রোদ উঠলে মাটির লবনাক্ততা বেড়ে গেলে দেখা দেয় আরো বড় সমস্যা।

চরফ্যাশন আমিনাবাদ উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোবারক হোসেন বলেন, ৫০ ভাগ তরমুজ প্রায় শেষ। যদি আজ থেকে আর বৃষ্টি না হয় তাহলে কিছু ঘরে তোলা যেতে পারে। নাহয় এবার কোন তরমুজ ঘরে তোলা বা বিক্রি করা সম্ভাব হবেনা। চাষীগন ব্যপক লোকসানের মধ্যে পড়বে। উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা ঠাকুর কৃষ্ণ বলেন, এ বছর ২ হাজার ১৩৮ হেক্টর জমিতে তরমুজ চাষাবাদ করা হয়েছে। চরফ্যাশন পৌরসভাসহ ২১টি ইউনিয়নের গোল আলু ২৮৮ হেক্টর, খেশারী ডাল ১হাজার ২২৬ হেক্টর, মুগ ডাল ৩হাজার ৫৮৮, মরিচ ২হাজার ১৩৫, ফেলন ডাল ২৬৮. চিনে বাদাম ১হাজার ১১০, শাক-সবজি ৭০০হেক্টর জমিতে মোট প্রায় ৩‘শ ৭৪ কোটি টাকা ক্ষয় ক্ষতি হয়েছে। উপজেলার আহম্মদপুর গ্রামের তরমুজ চাষী নুরুল ইসলাম বলেন, আমি ৩ একর জমিতে তরমুজ চাষ করছি। ঘূর্ণিঝড় ও প্রচুর পরিমান বর্ষায় হওয়ায় তরমুজ অর্ধেকের বেশী বিনষ্ট হয়েছে। বর্ষা আর না হলেও চাষীরা লোকসানের মুখে পড়তে হবে।

উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আমির হোসেন বলেন, আমি বিছিন্ন দ্বীপ মজিব নগর ইউনিয়নের দায়িত্বে রয়েছি। আমাদের এ এলাকায় কৃষকের ক্ষতির পরিমান বেশী। এখানে তরমুজ চাষীরা সবচেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।
চরফ্যাশন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মনোতোষ সিকদার বলেন, ভোলার তরমুজ সবচেয়ে মিষ্টি ও সুস্বাদু ঢাকাসহ বিভিন্ন অঞ্চলে এই তরমুজের চাহিদা রয়েছে। এবার চরফ্যাশনে ২হাজার ১৩৮ হেক্টর জমিতে তরমুজ চাষাবাদ করা হয়েছে। মঙ্গল ও বুধবার সাকালের বৃষ্টিতে তরমুজ ক্ষেতে পানি জমে গেছে। সেচ দিয়ে পানি সরানোর চেষ্টা চলছে। আমাদের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাদেরকে ক্ষতিগ্রস্থ চাষীদের পাশে দাড়াতে বলা হয়েছে।
বৃহস্পতি বার ০৭-০৩ – ২০১৯ খৃষ্টাব্দ

About মোঃ রিয়াজ মোর্শেদ, চরফ্যাশন, ভোলা।

Check Also

গাইবান্ধায় সাতদিনব্যাপী এসএমই পণ্য মেলার উদ্বোধন

গাইবান্ধা প্রতিনিধি : গাইবান্ধা স্বাধীনতা প্রাঙ্গণে বৃহস্পতিবার থেকে আগামী ২৭ মার্চ পর্যন্ত সাতদিনব্যাপী এসএমই ফাউন্ডেশনের …

জাপার দুটি গ্র“প কর্তৃক পৃথক কর্মসূচির মাধ্যমে দলীয় চেয়ারম্যান এরশাদের জন্মদিন পালন

গাইবান্ধা প্রতিনিধি : গাইবান্ধায় জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের ৯০তম জন্মদিন …

শাহজাদপুর উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক কমিটি গঠিত: রাজীব আহবায়ক : দিনার- হিরোক যুগ্ম-আহবায়ক

স্বাধীন কথা ডটকম, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ : দীর্ঘ ১৫ বছর পূর্বে গঠিত বাংলাদেশ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *