রবিবার - জুন ১৬ - ২০১৯ ||
Home / বাংলাদেশ / গাইবান্ধা / পলাশবাড়ীর করতোয়া নদী ভাঙনের আশঙ্কায় অর্ধশতাধীক পরিবার

পলাশবাড়ীর করতোয়া নদী ভাঙনের আশঙ্কায় অর্ধশতাধীক পরিবার

গাইবান্ধা প্রতিনিধি : গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার কিশোরগাড়ী ইউনিয়নের করতোয়া নদীর ভাঙনের আশঙ্কায় অর্ধশতাধীক পরিবার রয়েছে। আগামী বর্ষা মৌসুমে নদীগর্ভে বিলিন হতে পারে তাদের বসতবাড়ী গুলো।
সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার ১নং কিশোরগাড়ী ইউনিয়নের সুলতানপুর গ্রামে গত কয়েক বৎসরের ব্যবধানে করতোয়া নদীর ভাঙনে কয়েকটি পরিবারের বসতবাড়ী নদীগর্ভে বিলিন হয়ে গেছে। বর্তমানে ৩০ থেকে ৩৪টি পরিবার নদী ভাঙনের ঝুকি নিয়ে দিন কাটাচ্ছে। আগামী বর্ষা মৌসুমে নদীর ভাঙনে হারাতে পারে তাদের থাকার জায়গা টুকু। এমতবস্থায় এ পরিবার গুলো যাবে কোথায়? অধিকাংশ পরিবার দ্বারিদ্রসীমার নিচে বসবাস করায় এমন প্রশ্ন দেখা দিচ্ছে। নিরাপদ স্থানে বাড়ীঘর তৈরী করার মত আর্থিক সামর্থ অধিকাংশ পরিবারেরই নাই। সরকারের সহযোগীতা ছাড়া ভাঙন রোধে কোন পন্থা খুজে পাচ্ছে না। একটা বড় আকারে নদীর বাঁক থাকায় নিয়মিত প্রতি বছরে এ ভাঙ্গনের কবলে পড়ছে। ভূক্তভোগী পরিবার গুলোর মাঝে ব্যাপক হতাশা বিরাজ করছে।
খায়রুল, তহিদুল, শাহারুল সহ এলাকাবাসী জানায়, বিভিন্ন সময়ে জনপ্রতিনিধিরা নদী ভাঙন রোধে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন, এমন প্রতিশ্রতি দিলেও অদ্যাবধি কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয় নাই।
গাইবান্ধা পানি উন্নয়ন বোর্ড এর নির্বাহী প্রকৌশলি মোখলেছার রহমান মুঠোফেনে জানান,এ বিষয়ে আমি অবগত ছিলাম না এবং ঐ স্থান পরিদর্শন করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
ঠিক নদীর কিনারায় বসবাসকারী এ পরিবারগুলোর রক্ষার্থে সংশ্লিস্ট বিভাগের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ একান্ত জরুরী হয়ে পড়েছে ।

About মো: শামসুজ্জোহা, গাইবান্ধা

Check Also

গাইবান্ধা প্রেসক্লাবের প্রতিবাদ সভা

গাইবান্ধা প্রতিনিধি : গাইবান্ধা প্রেসক্লাবের সম্মানিত কয়েকজন সদস্যদের বিরুদ্ধে মিথ্যা,বানোয়াট, ভিত্তিহীন ও মনগড়া তথ্য দিয়ে …

জন্ম, বিয়ে ও মৃত্যু ১৩ তারিখেই

কিছুদিন পূর্বে মামুনের বিয়ে হয়। বিয়ের সময় হাতে লাগানো মেহেদির রঙ এখনো শুকায়নি। কিন্তু, সড়কে …

গোবিন্দগঞ্জে বাস ও ট্রাকের মুখোমুখী সংঘর্ষে নিহত-১

গাইবান্ধা প্রতিনিধি : গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের কামারদহ ইউনিয়নের চাপরীগঞ্জ সীমান্ত এলাকায় শুক্রবার ভোর সাড়ে ৫ টার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *