বৃহস্পতিবার - জুলাই ১৮ - ২০১৯ ||
Home / প্রচ্ছদ / স্যালভেশান ব্যান্ড এর পথচলা

স্যালভেশান ব্যান্ড এর পথচলা

 

স্বাধীন কথা ডটকম

নব্বই দশকের তারুণ্যে ব্যান্ড মিউজিকের প্রভাব আকাশ ছোঁয়া। অসংখ্য জনপ্রিয় ব্যান্ডের নতুন নতুন অ্যালবাম আর কনসার্টের উন্মাদনা মাতিয়ে রেখেছে তরুণ প্রজন্মকে। মিউজিকের প্রতি টান আর একেকটি সফল কনসার্টের মুগ্ধতা অসংখ্য তরুনের মনে স্বপ্ন জাগায়, অনুপ্রেরণা যোগায় ব্যান্ড গঠনের।

১৯৯৬ সালে দুই বন্ধু পলিন ও জুবায়ের পরিকল্পনা করল একটি ব্যান্ড গঠনের। আর দুজন বন্ধু সহ পলিন গান ও গিটার, জুবায়ের ড্রামস, শামীম কীবোর্ড ও সোহাগ বেস গিটার শিখা ও অনুশীলন শুরু করে। ১৯৯৭ সালের ৪ মার্চ চারটি নামের মধ্য থেকে স্যালভেশান নামটি নির্বাচন করা হল। কারণ স্যালভেশান এর অর্থ পরিত্রাণ বা মুক্তি। সুর দিয়ে অসুর থেকে মুক্তিই স্যালভেশানের লক্ষ। পড়াশোনা ও পেশাগত কারনে অল্প সময়ের ব্যাবধানে ব্যান্ড রেখে যায় শামীম ও সোহাগ।

১৯৯৮ সালে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড অফিসে স্যালভেশানের প্রথম শো।বাজাতে হবে চারটি গান। আরেকটি ব্যান্ড থেকে কীবোর্ডে বন্ধু অঙ্কুর ও বেস গিটারে স্বপনকে আমন্ত্রণ জানানো হয় সেই অনুষ্ঠানে বাজানোর জন্য। প্রথম অনুষ্ঠানেই দর্শকের উচ্ছ্বাস অনুপ্রেরণা যোগায় ব্যান্ডকে। পরের বছর রাজশাহী জেলা পরিষদ মিলনায়তনে বড় আয়জনের একটি শো। ভোকাল হিসেবে জয়েন করল রঙ্গন ও বেস গিটারে রাজু।এই অনুষ্ঠানটিও বেশ ভাল হল। শুরু হল ষ্টেজ লাইভ শো এর ব্যাস্ততা।উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন শহর থেকে শুরু করে ধীরে ধীরে সারা দেশের অনেক শহরেই চলে লাইভ মিউজিকের বিচরন। দেশের জনপ্রিয় ব্যান্ডের গান পরিবেশন করে স্যালভেশান শ্রোতার ভালোবাসা অর্জন করে।

 

১৯৯৯ সালে বেনসন এন্ড হেজেস কম্পানি, স্টার সার্চ নামে একটি রিয়েলিটি শো এর আয়োজন করে। বাংলাদেশের প্রথম রিয়েলিটি শো যেখানে প্রতিযোগিতা হবে মৌলিক গান নিয়ে। স্যালভেশানের নতুন লক্ষ এই যুদ্ধ জয় করা। কাজেই শুরু হল নিজেদের মৌলিক গান তৈরির প্রস্তুতি। অঙ্কুর, পলিন, রঙ্গন ও বন্ধু রাসেলের লেখা গানে সুর ও মিউজিক এরেঞ্জমেনটে মননিবেশ করে ব্যান্ড। রক ব্যান্ডের প্রচলিত ধারা ও গানের বিষয় বৈচিত্র্য লক্ষ রেখে সৃষ্টি করা হয়েছে প্রেম, বিরহ, বিপ্লব, বিদ্রোহ, মাদক বিরোধী অথবা পরিবেশ সচেতনতা নিয়ে গান – ধুপছায়া, স্মিতি, নির্ঘুম শহর, নির্বাসিতা, মৃত্যুক্ষুধা, অগ্নিশিখা, মহাশ্মশান প্রভৃতি।

 

স্টার সার্চ কম্পিটিশনে অংশ নিয়েই বিজয় আসেনি। পর পর তিন বছর অংশ নিয়ে সেরা একশ, সেরা পনের ও সেরা দশে স্থান করলেও চূড়ান্ত বিজয় আসেনি তখনও।

২০০৪ সালে স্যালভেশান ভাবল এ বছর হয় চূড়ান্ত বিজয় অর্জন করবে না হলে আর প্রতিযোগিতা করবেনা ব্যান্ড। তাই বিগত দিনের অভিজ্ঞতা পুঁজি করে নতুন দুটি গান কবর ও অগ্নিশিখা তৈরি করা নিয়ে বিস্তর গবেষণা ও চর্চা শুরু হল।গানের কথা কম্পজিশন ও মিউজিকে প্রাণ থাকতে হবে যেন চূড়ান্ত লক্ষে পৌঁছানো যায়।

প্রতিযোগিতায় প্রাথমিক ভাবে বিভাগীয় পর্যায়ে সেরা ব্যান্ড হয় স্যালভেশান। বিচারক কুমার বিশ্বজিৎ স্যালভেশানের গানের ভাবনা ও কম্পজিশানের প্রশংসা করেন।

বিভাগীয় পর্যায়ের সেরা ব্যান্ডের ঘোষণা দেওয়ার সময় আরেকজন বিচারক প্রয়াত কিংবদন্তী শিল্পী আইয়ুব বাচ্চু দর্শকের উদ্দেশ্যে বলেন –

পরাজয় মানেনা এমন সাহসী সৈনিক স্যালভেশান। চূড়ান্ত প্রতিযোগিতার জন্য হাতে সময় আছে এক মাস। আপনারা ওদের পাশে থেকে উৎসাহ দিবেন। আরেকটু পরিশ্রম করলে আপনাদের জন্যই সুনাম বয়ে নিয়ে আসবে স্যালভেশান।

 

এমন একজন কিংবদন্তীর স্নেহময় অনুপ্রেরনায় স্যালভেশান কঠিন থেকে কঠিনতর অনুশীলন শুরু করে। মজার বিষয় হল কঠোর অনুশীলন করতে গিয়ে ব্যান্ডের প্রতিটি সদস্যই অসুস্থ হয়ে পড়ে, তবু অসুস্থ শরীরেই অনুশীলন চলতে থাকে বিরামহীন।

 

২০০৪ সালের ২৯ নভেম্বার স্যালভেশান ব্যান্ডের জন্য এক অবিস্মরণীয় দিন।

হোটেল শেরাটনের উইন্টার গার্ডেনে বেনসন এন্ড হেজেস স্টার সার্চের চূড়ান্ত প্রতিযোগিতার দিনে চূড়ান্ত প্রতিযোগিতার বিচারক ছিলেন সৈয়দ আব্দুল হাদী, নকীব খান, ফুয়াদ নাসের বাবু, মানাম আহমেদ, পার্থ বড়ুয়া ও আইয়ুব বাচ্চু।

প্রতিযোগিতার মঞ্চে গান শুরুর সাথে সাথে বিচারক ও দর্শক শ্রোতার মাঝে কি যেন এক বিশেষ আলোড়ন দেখতে পায় স্যালভেশান মঞ্চ থেকেই। প্রতিযোগিতা শেষে বিচারক পার্থ বড়ুয়া বলেন,যদি ওদের চোখ বেঁধেও ছেড়ে দেয়া হত তবুও ওরাই সবার চেয়ে ভাল করত। কারণ ওরা যে ভয়াবহ ধরনের প্র্যাকটিস করেছে তা ওদের পারফর্মেন্স যে কেউ দেখলেই বুঝতে পারবে। চূড়ান্ত যুদ্ধ শেষে ফলাফল ঘোষণায় একে একে উচ্চারিত হল, সেরা ড্রামার জুবায়ের ফ্রম স্যালভেশান, সেরা বেস গিটারিস্ট জনি ফ্রম স্যালভেশান, এবং সব শেষে সেরা ব্যান্ড আবারও স্যালভেশান।

বিজয় ঘোষণা ও ক্রেস্ট হাতে তুলে দেবার সময় অত্যন্ত স্নেহের কণ্ঠে আইয়ুব বাচ্চু আবারও বল্লেন, আমি বলেছিলাম পরাজয় মানে না এমনই সাহসী যোদ্ধা স্যালভেশান ব্যান্ড, ওরা তা প্রমাণ করল।

 

স্টার সার্চে সেরা ব্যান্ডের শিরোপা অর্জন করায় বেনসন এন্ড হেজেসের আয়োজনে এম্পালাইভ বাংলাদেশ ট্যুর কনসার্টে হাবীব ওয়াহীদ ও এল আর বি’র সাথে সারা দেশের একাধিক শহরে শো তে অংশ নেয় স্যালভেশান। এরই ধারাবাহিকতায় মিরপুর স্টেডিয়াম ঢাকায় এম্ফেসট নামে একটি মেগা কনসার্ট অনুষ্ঠিত হয়। স্যালভেশান, ব্ল্যাক, শিরোনামহীন, স্বাধীনতা, নগরবাউল, এল আর বি এমন চোদ্দটি বাংলাদেশী ব্যান্ড ও দুটি বিদেশী ব্যান্ড জুনুন ও ষ্টিঙ্ গান পরিবেশন করে। তবে এই কনসার্টের বিশেষ আকর্ষণ ও বিশেষভাবে সম্মানিত করা হয় বাংলাদেশের লিজেন্ড পপ গুরু আজম খান কে।

এ সকল সফল শো এর প্রেক্ষিতে ব্যাস্ততা বাড়ে সারা দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের ষ্টেজ শো ও টেলিভিশন অনুষ্ঠানের। একই সাথে গান রেকর্ডিঙের কাজ শুরু করে ব্যান্ড।

২০১০ সালে ইম্প্রেস অডিও’ র ব্যানারে অন্যরকম শিরোনামের মিক্সড এ্যালবামে প্রকাশ পায় স্যালভেশানের প্রথম গান নির্ঘুম শহর। পপ গুরু আজম খানের প্রয়ানে তাঁকে স্মরণ করে প্রমিথিউস ব্যান্ডের বিপ্লব ট্রিবিউট টু গুরু আজম খান নামক অনলাইন ভার্সন অ্যালবাম রিলিজ করেন। এই আলবামে গুরু শিরোনামে গান করে স্যালভেশান। ২০১৩ সালে ক্রিকেট বিশ্বকাপ নিয়ে দেশের ক্রীড়া অঙ্গনের স্বপ্ন ও সাফল্যের অনুপ্রেরণামূলক গান জাগো রেকর্ড করে ব্যান্ড। জাগো গানটি আজব রেকর্ডসের ব্যানারে প্রকাশ করে ব্যান্ড।

 

২০০৩ সালে এক দুর্ঘটনায় ব্যান্ড হারায় তাদের প্রিয় বন্ধু কীবোর্ডস্ট অঙ্কুর কে। আর দশটা ব্যান্ডের ভাঙা গড়ার খেলার মতই বিভিন্ন সময়ে লাইনআপে আসে অনেক পরিবর্তন।কীবোর্ডস্ট টিটো ভাই,পুনম,সাদ্দাম,বেস নাদিম ভাই,রাজু,রাজা,রনি, ভোকাল জাহিন ও শাকিল ভাই ছিলেন স্যালভেশানের সাথে। স্যালভেশান এর বর্তমান লাইনআপ-

ভোকাল রঙ্গন                                                                গিটার ও ভোকাল পলিন

বেজ গিটার জনি                                                               ড্রামস জুবায়ের

গিটার শিশির                                                                    ম্যানেজার সেলিম  

 

মাঝে কিছুটা সময় পেশাগত ব্যাস্ততার কারনে অনিয়মিত থাকলেও নতুন উদ্যমে কনসার্ট আর নতুন গান নিয়ে আবারও ফিরছে স্যালভেশান।

স্বাধীন কথার সম্পাদক(ভারপ্রাপ্ত) কবি নার্গিস আরা স্যালভেশন ব্যান্ডকে শুভকামনা জানিয়ে  সামনে এগিয়ে যেতে বলেছেন এবং  স্বাধীন কথা সবসময় তাদের পাশে থাকবে।

মুঠোফোনঃ ০১৭১১৩৬৬২২৬, ই-মেইলঃ [email protected], ইউ-টিউব, ফেইসবুকঃ Salvation Band

০৭-১২-২০১৮ খ্রিঃ

কম খরচে আপনার যেকোনো বিজ্ঞাপন স্বাধীন কথা ডটকম এ দিন। মুঠোফোনঃ০১৭১২-৫২৮২৩২,০১৯১১-৪৮৪৭৪৮

About সাঈদ আলী সাইফ

Check Also

২০৪১ সালের মধ্যে শাসন ব্যবস্থা বিকেন্দ্রায়িত হবে

স্বাধীনকথা ডট কম জাতীয় সংসদ ভবন থেকে: রূপকল্প-২০৪১ বাস্তবায়নে শাসন ব্যবস্থা বিকেন্দ্রায়িত এবং সরকারি ব্যায়ের সিংহভাগ …

ডারবান চলচ্চিত্র উৎসবে ‘হাসিনা’: অ্যা ডটারস টেল’

স্বাধীনকথা ডট কম দক্ষিণ আফ্রিকায় অনুষ্ঠিতব্য ৪০তম ডারবান আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হবে  প্রধানমন্ত্রী শেখ …

উবার চালকের হাতে শ্লীলতাহানির শিকার অভিনেত্রী

স্বাধীনকথা ডট কম উবার চালকের হাতে শ্লীলতাহানির শিকার হয়েছেন টলিউড অভিনেত্রী স্বস্তিকা দত্ত। বুধবার সকালে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *