মঙ্গলবার - মার্চ ২৬ - ২০১৯ ||
Home / বাংলাদেশ / গাইবান্ধা / গাইবান্ধা-২ (সদর) আসনে দেখা দিয়েছে জনগণের ব্যাপক ভোটে নৌকার জয়ে সম্ভবনা

গাইবান্ধা-২ (সদর) আসনে দেখা দিয়েছে জনগণের ব্যাপক ভোটে নৌকার জয়ে সম্ভবনা

গাইবান্ধা প্রতিনিধি : আসন্ন সংসদ নির্বাচনে সদর উপজেলা নিয়ে গঠিত গাইবান্ধা-২ (সদর) আসনে জমে উঠেছে ভোটের লড়াই। এ আসনটিতে এবার মোট ৬ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তবে এ লড়াই হবে আওয়ামী লীগ (নৌকা) প্রার্থী মাহাবুব আরা বেগম এবং বিএনপি (ধানের শীষ) প্রার্থী আব্দুর রশিদ সরকারের মধ্যে। দিন নেই, রাত নেই প্রার্থীরা ছুটছেন ভোটারদের দোর গোড়ায়। নৌকার প্রার্থী উন্নয়ন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করতে দোয়া চাইছেন, অন্য প্রার্থীরা উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন । এদিকে বিগত সময়ে নৌকার প্রার্থী হুইপ মাহবুব আরা বেগম গিনি এমপির উন্নয়ন কর্মকান্ডের কাছে ঝিমিয়ে পড়তে শুরু করেছেন অন্যান্য প্রতিদ্বন্দি প্রার্থীরা সে ক্ষেত্রে ব্যাপক ভোটে জয়ের সম্ভবনা দেখা দিয়েছে নৌকা প্রার্থীর।

আওয়ামী লীগ মনোনীত মহাজোট প্রার্থী মাহাবুব আরা বেগম বর্তমানে জাতীয় সংসদের হুইপ। তিনি পর পর দু’বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ প্রার্থী হিসেবে মহাজোট থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে তিনি ১ লাখ ৬৬ হাজার ৭২৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তিনি জেলায় প্রথম মহিলা সংসদ সদস্য যিনি সরাসরি ভোটের মাধ্যমে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিজয়ী হন। ২০১৪ সালের নির্বাচনেও তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতার মাঝে নির্বাচিত হন। পর পর দু’বার নির্বাচিত হয়ে তিনি এলাকার উন্নয়নে যথেষ্ট অবদান রেখেছেন। এবারেও নির্বাচিত হওয়ার লক্ষ্যে মাঠে ময়দানে জনসংযোগে ব্যস্ত। তিনি ভোটারদের কাছে তার অসমাপ্ত উন্নয়ন কাজ বাস্তবায়নে সুযোগ দেয়ার আহবান জানাচ্ছেন এবং এতে সর্বস্তরের জনগণ সারা দিচ্ছেন। তার গণসংযোগ ও উঠান বৈঠক গুলোতে সাধারণ মানুষের উপস্থিতি জানান দিচ্ছে যে তিনি তৃতীয় বারের মতো ব্যাপক ভোটে নির্বাচিত হবেন।

অপরদিকে ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থী আব্দুর রশিদ সরকার জাতীয় পার্টি থেকে পদত্যাগ করে সদ্য বিএনপিতে যোগদান করে দলীয় মনোনয়ন পান। প্রথমে বিএনপি থেকে মনোনয়ন পাওয়ায় স্থানীয়ভাবে দলের একাংশ তাকে মেনে নিতে পারেননি। কারণ তাদের নিজস্ব প্রার্থী ছিলো। কিন্তু ক্রমেই আব্দুর রশিদ সরকার দলের সকলের প্রার্থীতে পরিণত হলেও নিজের কর্মী সমর্থকদের কাছে থেকে অনেকটা দুরে সরে গেছেন। দলে বিভেদ দূর করে সবাই এক পাটফরমে এসে রশিদকে জয়ী করতে একসাথে কাজ করছে এখন সদর ও জেলা বিএনপি এবং ঐক্যফন্ট ভুক্ত দলগুলো। তাদের গণসংযোগে ও উঠান বৈঠক সমুহে সাধারণ মানুষের উপস্থিতি নগন্য এতেই ধারণা করা যায় এ আসনটিতে তাদের ব্যাপক ভাবে পরাজয় ঘটবে । আব্দুর রশিদ জাতীয় পার্টির প্রার্থী হিসেবে ১৯৯১ এবং ১৯৯৬ সালের নির্বাচনে পর পর দু’বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি সংসদ সদস্য হিসেবে সে সময় বেশকিছু উন্নয়ন কাজ করেন। তিনি জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং জেলা কমিটির সভাপতি ছিলেন। তবে জাতীয় পার্টি দলগত ভাবে মহাজোটের প্রার্থী হুইপ মাহবুব আরা গিনির পক্ষে কাজ করায় আব্দুর রশিদ সরকারের ব্যাপক ভোটে পরাজয় সম্ভবনা আরো দিনে দিনে দৃশ্যমান হচ্ছে।

এই দুই প্রধান প্রার্থী এখন গণসংযোগে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। দু’জনের একজন হুইপ মাহবুব আরা বেগম গিনি এলাকার উন্নয়ন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন অন্যজন আব্দুর রশিদ সরকার এলাকার উন্নয়নে কাজ করবেন বলে ভোটারদের প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন। নির্বাচন পর্যবেক্ষকদের ধারণা এই দুই প্রার্থীর হাড্ডা হাড্ডি লড়াই হওয়ার কোন সম্ভবনা নাই। এ আসনে ধানের শীর্ষ প্রতিকের প্রার্থী দল পাল্টানো রশিদ সরকারের ব্যাপক ভোটে পরাজয় ঘটবে। এতে করে আসনটি আবারো নৌকার জয় হবে এবং আওয়ামীলীগের ঘরেই যুক্ত হবে।

আসনটিতে আরো যারা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন তারা হচ্ছেন- সিপিবির মিহির কুমার ঘোষ (কাস্তে), এনপিপির জিয়া জামান খান (আম), ইসলামী আন্দোলনের মো. আল আমিন (হাত পাখা) এবং মাওলানা যুবায়ের আহম্মদ (মিনার)। এ আসনে ৩ লাখ ৩৪ হাজার ৫৭৮ জন ভোটার এবার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। এই ভোটারদের বেশীর ভাগ অংশই নারী ভোটা একারণে নারী প্রার্থী জাতীয় সংসদের মাহবুব আরা বেগম গিনির বিজয় অনেকটাই সুনিশ্চিত।

About মো: শামসুজ্জোহা, গাইবান্ধা

Check Also

সুন্দরগঞ্জে ট্রাক চাপায় সুমি হত্যাকারীর ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন

গাইবান্ধা প্রতিনিধি : উপজেলায় ট্রাক চাপায় পিষ্ঠ হয়ে ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী সুমি আক্তারের হত্যার বিচারসহ …

ফুলছড়ির বর্তমান থানা এলাকায় তদন্ত কেন্দ্র স্থাপনের দাবীতে মানববন্ধন বিক্ষোভ মিছিল ও অবস্থান ধর্মঘট

গাইবান্ধা প্রতিনিধি : গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার বর্তমান থানা এলাকায় তদন্ত কেন্দ্র স্থাপন না করে থানা …

স্থগিত গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন আগামী ৩১ মার্চ

গাইবান্ধা প্রতিনিধি : উচ্চ আদালতের নির্দেশে স্থগিত গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন আগামী ৩১ মার্চ রোববার অনুষ্ঠিত …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *